বাংলাদেশের একটি অন্যতম সুন্দর জায়গার নাম সাজেক ভ্যালী। আকবাকা পাহাড়ী পথ বেয়ে মেঘের রাজ্যের ভিতর দিয়ে সাজেক যাওয়া সত্যিই অসাধারন। সাজেক রাঙ্গামাটি জেলার সর্ববৃহৎ ইউনিয়ন। সাজেক যদিও রাঙ্গামাটি জেলায় অবস্থিত তবে যাতায়াতের সহজ পথ খাগড়াছড়ি-দিঘিনালা রোড। রাঙামাটির অনেকটা অংশই দেখা যায় সাজেক ভ্যালি থেকে। খাগড়াছড়ি থেকে ৬৯ কি.মি. এবং বাঘাইছড়ি উপজেলা থেকে ৩০ কি.মি. দুরের সাজেকের পুরোটাই পাহাড়ে মোড়ানো পথ। প্রকৃতির এই রুপ যেন রাঙামাটির ছাদ! নয়নাভিরাম অরণ্যভূমি আর পাহাড়ের বন্ধনে যেখানে মেঘের দল প্রেমে মেতে থাকে।

 

যাত্রা শুরুঃ আরামবাগ, ঢাকা
যাত্রার তারিখ ১০/১০/২০১৬  রাত ১০.০০টায়
ফেরার তারিখ : ১২/১০/২০১৬  রাত ৯.০০টায়
ভ্রমণের বাস: সাউদিয়া এবং ইগল পরিবহন নন এসি বাস
তথ্য সমূহ :
৩ রাত ২ দিন  হোটেল রুম ( প্রতি 4 জনের জন্য একটি রুম )
প্রতি জিপে 14-16 জন খাগড়াছড়িতে ফ্রেশ হওয়ার জন্য গ্রুপ ওয়াশ রুম
খাবার মেন্যু:
সকালের নাস্তা -ডিম +সবজি +পরটা +চা অথবা খিচুড়ি +ডিম ভুনা
দুপুরের অাহার -মুরগীর মাংস /মাছ+সবজি +ডাল +সাদা ভাত
রাতের অাহার – মুরগীর মাংস/মাছ +সবজি +ডাল+সাদা ভাত
স্পেশাল ডিনার : সবজি + ফিশ ফ্রাই +ভর্তা +বেম্বু চিকেন +ডাল +সাদা ভাত
যা যা দেখব :
সাজেক ভ্যালী
কংলাক পাড়া
রিছাং ঝরনা
অালুটিলা রহস্যময় সুড়ঙ্গ
হাজরা ছড়া ঝরনা
ঝুলন্ত ব্রীজ( জেলা পরিষদের পার্ক )
যা যা ভ্রমণের মধ্যে থাকছে না:
বাসের যাত্রা বিরতির খাবার
দর্শনীয় স্থান সমুহের টিকেট (প্রবেশ ফি)
ব্যক্তিগত খরচ যেমন লন্ড্রি, টেলিফোন কল, মিনারেল ওয়াটার , নরম ও হার্ড ড্রিংকস
উল্লিখিত ভ্রমণপথের তুলনায় অতিরিক্ত ঘুরে বেড়ানো বা গাড়ির অতিরিক্ত ব্যবহারের খরছ
প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ভূমিধস , রাস্তা অবরোধের , রাজনৈতিক গোলযোগ ( ধর্মঘট ) ইত্যাদি কারণে উদ্ভূত কোন খরচ ক্রেতা ও ভোক্তাকে সরাসরি ঘটনাস্থলেই বহন করতে হবে
যা যা সঙ্গে নিবেন:
ব্যাগ গামছা ছাতা Odomos cream
সানক্যাপ কেডস/ সেন্ডেল ক্যামেরা+ব্যাটারী+চার্জার পলিথিন
টুথপেষ্ট+ সাবান+শ্যম্পু সানগ্লাস সানব্লক টিস্যু
ব্যক্তিগত ঔষধ লোশন রবি সিম
1

১০/১০/১৬ ১০.০০ রাত

আরামবাগ থেকে খাগড়াছড়ির উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু
2

১১/১০/১৬ ০৭.০০ সকাল

খাগড়াছড়ি পৌঁছে আমরা হোটেলে উঠবো তারপর ফ্রেশ হয়ে, নাস্তা শেষে চান্দের গাড়ি করে আমরা রওনা হব সাজেকের দিকে। খাগড়াছড়ি থেকে সাজেক ৩ ঘন্টার পথ মাত্র। দু’পাশে পাহাড়ের সারি, আঁকা বাঁকা রাস্তা আর সবুজের বুক ছিঁড়ে এগিয়ে যেতে থাকবে গাড়ি। পথের পাশ হতে পাহাড়ি শিশুর অভ্যর্থনা আপনার হৃদয় ছোঁয়ে যাবে। মনে হবে আপনি বুঝি পৌঁছে গেছেন স্বর্গের দ্বার প্রান্তে। আর আপনার চলার পথের দু’পাশ হতে স্বর্গীয় দূত অপেক্ষায় আছে আপনাকে বরণ করতে।
আসলে একটু ভালো করে অনুভব করলে হয়তো আপনার ভ্রমণের পুরো আনন্দটা-ই পেয়ে যেতে পারেন যাত্রা পথে।
সাজেকে পৌঁছে আমরা উঠবো হোটেলে। সাজেকের আবহাওয়া দিনে গরম থাকলে ও অনেক বাতাসের জন্য গরম কম অনুভূত হয়। রাতে রীতিমত শীত নেমে আসে ।
3

১১/১০/১৬ ০৭.০০ সকাল

তারিখ ভ্রমণের ২য় দিন সাজেকের মনোমুগ্ধকর ভোর উপভোগ করে সকালের নাস্তার পর খাগড়াছড়ির উদ্দেশ্যে যাত্রা এবং সেখানে পৌঁছে মধ্যান্য ভোজ শেষে করে খাগড়াছড়ির বিভিন্ন স্পট ঘোরা

sajek-valley1-1024x680